ঝড়ে মাফিয়াতন্ত্র লন্ডভন্ড হয়ে যাবে : রিজভী

ঢাকা- ক্ষমতাসীন সরকারের অন্যায় অবিচার এবং গুম খুনের বিরুদ্ধে যে ঝড় উঠেছে, এই ঝড়ে এই মাফিয়া তন্ত্র লন্ডভন্ড হয়ে যাবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

আজ সোমবার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে নারী ও শিশু অধিকার ফোরাম আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, ‘যে ঝড় উঠেছে এই ঝড়ের মধ্যে বালিতে মাথা গুঁজে রাখলে ঝড়ের প্রভাব কমবে না। চারিদিকে অন্যায়-অবিচার, গুম-খুন যেভাবে বিস্তার লাভ করেছে, এটা চিরদিন চলতে পারে না; এর অবসান হবেই।’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, ‘আওয়ী লীগ সাধারণ সম্পাদক অত্যন্ত সুরক্ষিত গৃহ থাকেন, যেখানে করোনাভাইরাস ঢুকবে না। সেই গৃহ থেকে তিনি বলছেন, বিএনপির মরা গাঙ্গে আর জোয়ার আসবে না। মরা গাঙ তো আপনারাই তৈরি করেছেন। যাদের সাথে আপনাদের রক্তের সম্পর্ক, তারাই তো বাংলাদেশের গাঙ, নদী-নালান পানি প্রবাহ বন্ধ করে দিয়েছে। আপনি ঠিকই বলেছেন ওবায়দুল কাদের সাহেব, বিএনপি’র মরা গাঙ্গে জোয়ার আসবে না। কারণ, মরা গাঙ্গে এখন রক্তের স্রোত বয়, বিরোধীদলকে গুম খুন করে যে রক্ত ঝরিয়েছেন, সেই রক্তের স্রোত এখন শুকনা নদীতে প্রবাহিত হয়।’

ওবায়দুল কাদেরের উদ্দেশে রিজভী আরো বলেন, ‘আপনারা এখন প্রতিপক্ষ না পেয়ে নিজেরা নিজেরাই মারামারি করছেন, আপনার ছোট ভাইকে আপনি সামাল দিতে পারেন না। আপনার ছোট ভাই এখন বিবেকের তাড়নায় হোক অথবা পরিবারের মধ্যে লেনদেন নিয়ে কোন ঘাটতির কারণে হোক, সত্য কথাগুলো বলে দিচ্ছেন।

তিনি বলছেন যে নির্বাচন ফেয়ার হয়নি, দিনের ভোট রাতে হয়েছে এটা কাদের মির্জা বলছেন যিনি আপনার ছোট ভাই। আমরা যে কথাগুলো প্রতিদিন বলছি জনগণ যে কথাটি নিজের চোখে দেখেছে সেই কথা এখন আওয়ামী লীগের নেতারা নিজেরাই বলছেন। তাদের এই ঝগড়াঝাঁটির মধ্যে নিরীহ সাংবাদিক মুজাককিরকে জীবন দিতে হলো। কাদের সাহেব আপনিতো প্রতিদিন বিএনপি’র বিরুদ্ধে বিষোদগার করেন এর উত্তর আপনি কি দিবেন? আপনার ভাই এবং আওয়ামী লীগের এক নেতার মধ্যে সংঘর্ষের সময় নিরীহ সাংবাদিক নিহত হলো এখন কোথায় মুখ লুকাবেন?

রিজভী বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়া কিন্তু এখনো বন্দি, তারপরও নড়াইলের একটি আদালতে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। প্রতিহিংসার আগুনের শিখা এতই লেলিহান, এটা যেন এই সরকার এবং সরকার প্রধানের মন থেকে নিভেই না। যাকে কারাগার থেকে নিয়ে বাসায় বন্দি করে রাখা হয়েছে, তার সমস্ত মানবিক অধিকার হরণ করা হয়েছে। তারপরও নড়াইলের একটি আদালতে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। এটা একটা পৈশাচিক সরকার ছাড়া কেউ করত না। হিটলার মুসোলিনি সাদ্দাম এরা এই কাজগুলোই করতেন। বিরোধী দলকে নিশ্চিহ্ন করার জন্য যত ধরনের প্রথা পদ্ধতি দরকার, তারা প্রয়োগ করতেন। ঠিক একই কায়দায় এই অবৈধ সরকারও দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে তা করছে।’

সূত্র :সময়ের কণ্ঠস্বর