নিজের হাতেই প্রাণ গেল তরুণের!

ভোলার তজুমদ্দিনে মানসিক বিকারগ্রস্ত এক তরুণ নিজেকে কুপিয়ে হত্যা করেছে বলে পরিবার দাবি করেছেন। সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) রাতে উপজেলার শম্ভুপুর ইউনিয়নের বৌবাজার এলাকার নিজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটেছে।

নিহত প্রদীপ বর্ণিক স্থানীয় বিপুল বর্ণিকের ছেলে। মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) সকালে মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

নিহতের বাবা বিপুল বর্ণিক জানান, তার ছেলে প্রদীপ বর্ণিক (২৮) দীর্ঘদিন ধরে মানসিক রোগে আক্রান্ত। সোমবার রাতে তারা সপরিবারে স্থানীয় অনিল বাবাজীর আশ্রমে কীর্তন শুনতে যান। রাত ৮ টায় আশ্রমেই পাগলামি শুরু করে প্রদীপ। পরিস্থিতি সামলাতে প্রদীপকে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয়। তাকে ঘরে রেখে সবাই আবার কীর্তন শুনতে যান। এ সময় প্রদীপ ঘরের মধ্যে দা দিয়ে কুপিয়ে নিজের হাত, পা ও শরীরের বিভিন্ন অংশে জখম করে এবং রক্তক্ষরণে তার মৃত্যু হয়। প্রতিবেশীদের মাধ্যমে খবর পেয়ে বাবা মা এসে তাকে মৃত পান। নিহত প্রদীপ বর্ণিক ৫ বছর আগে বিয়ে করেছেন। স্ত্রী পহেলী রানী ও এক সন্তান আছে তার।

তজুমদ্দিন থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এস এম জিয়াউল হক জানান, নিহতের পরিবার জানিয়েছে মানসিক সমস্যার কারণে প্রদীপ নিজেই এমন ঘটনা ঘটিয়েছে। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে। এ ঘটনায় একটি ইউডি মামলা করা হয়েছে। প্রকৃত ঘটনা উদঘাটনে পুলিশ তদন্ত করছে।