বরিশালে ছাত্রলীগ পরিচয়ে টপ টেন শো-রুমে হামলা-লুটপাট

বরিশালে ছাত্রলীগ পরিচয়ে টপ টেন শো-রুমে হামলা-ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন শো-রুমটির অন্তত ১০ কর্মচারী। আটক করা হয়েছে ৫ জনকে। তবে, মহানগর ছাত্রলীগ সভাপতি মো. জসিম উদ্দিনের দাবি, হামলার সঙ্গে জড়িত কেউ ছাত্রলীগের কর্মী নয়। এদিকে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছে পুলিশ।

রোববার (৭ মার্চ) সন্ধ্যার দিকে বরিশালে টপ টেনের শো-রুমে যায় অর্ধ শতাধিক তরুণ ও যুবক। তারা পোশাক, জুতা, ঘড়িসহ বিভিন্ন পণ্য একত্রিত করে। কিন্তু কেউ কাউন্টারে দাম পরিশোধের জন্য না যাওয়ায় কর্তৃপক্ষের সন্দেহ হয়। এসময় শো-রুমের কর্মচারীরা এ বিষয়ে কথা বলতে গেলে তারা জানায়, মহানগর ছাত্রলীগ সভাপতি মূল্য পরিশোধ করবেন। কিন্তু শো-রুম কর্তৃপক্ষ তাতে রাজি না হওয়ায় তারা টপটেন কর্মীদের ওপর হামলা চালায়। এতে অন্তত ১০ কর্মী আহত হন।

শো-রুমে ভাঙচুর ও পণ্য লুটপাটও করে তারা। এরপর পালানোর সময় ৫ জনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন প্রতিষ্ঠানটির কর্মচারীরা বলে জানান টপ টেন বরিশাল শাখার ম্যানেজার মো. মিরাজুল হক।

এদিকে, মহানগর ছাত্রলীগ সভাপতির দাবি, হামলা-ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনায় ছাত্রলীগের কেউ জড়িত নন।

ঘটনা তদন্ত করে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান কোতোয়ালী মডেল থানার ওসি মো. নুরুল ইসলাম।

গত ১৮ ফেব্রুয়ারি নগরীর সদর রোডের ঈমান আলী টাওয়ারের টপটেন শো-রুমটি চালু হয়।