‘উচ্চমহল’ বিশ্বাসঘাতকতা করবে না, আশা জাফর ইকবালের

শাহাজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের অনশন ভাঙিয়েছেন অধ্যাপক ড. জাফর ইকবাল। অনশন ভাঙানোর পরে তিনি বলেন, ‘দাবি পূরণের আশ্বাস দিয়েছে সরকারের উচ্চমহল। এই আশ্বাস বাস্তবায়ন করা না হলে সেটি হবে বিশ্বাসঘাতকতা। আমি আশা করব তারা যেন আমাকে যে কথা দিয়েছেন সে কথাগুলো রাখেন।’

এর আগে বুধবার সকাল ১০টা ২০ মিনিটে শাবিপ্রবি উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমদের পদত্যাগের দাবিতে এক সপ্তাহ অনশন করার পর জাফর ইকবাল ও তার স্ত্রী সাবেক অধ্যাপক ইয়াসমিন হক শিক্ষার্থীদের অনশন ভাঙান।

এরপর জাফর ইকবাল সাংবাদিকদের বলেন, শিক্ষার্থীদের অনশন ভাঙানোর আগে আমার সঙ্গে সরকারের অনেক উচ্চমহল থেকে কথা বলেছে। আমি তাদের অনুরোধ করব, তারা আমাকে যে কথা দিয়েছেন সে কথাগুলো যেন রক্ষা করেন। আমি আর এই ছাত্রদের ভেতর কোনো পার্থক্য নাই। ‘আমাকে যে কথাটা দিয়েছেন তা যদি রক্ষা করা না হয়, তাহলে বুঝে নেব তারা শুধু ছাত্রদের সঙ্গে নয়, আমার সঙ্গে এবং এই দেশের যত প্রগতিশীল মানুষ আছে সবার সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন। কাজেই আমি আশা করব তারা যেন আমাকে যে কথা দিয়েছেন সে কথাগুলো রাখেন।’

উপাচার্য প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘একজন শিক্ষকের এ রকম মেরুদণ্ডহীন হওয়ার কোনো কারণ নাই।’ উপাচার্য ফরিদের পদত্যাগের দাবিতে শিক্ষার্থীদের অনশন করার দরকার নেই জানিয়ে জনপ্রিয় এই লেখক বলেন, ‘এই আন্দোলনের জন্য অনশন করার দরকার নাই। কারণ যে মানুষটার জন্য তারা অনশন করে যাচ্ছে, তার জন্য প্রাণ দেয়া সমীচীন না।’

ঢাকা থেকে মঙ্গলবার রাতে রওনা দিয়ে ভোরের আগে ক্যাম্পাসে পৌঁছান বিশ্ববিদ্যালয়টির সাবেক দুই অধ্যাপক। প্রিয় শিক্ষকদের কাছে পেয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন শিক্ষার্থীরা। তার কাছে উপাচার্যের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগও করেন।

শাবির সাবেক অধ্যাপক জাফর ইকবালের আশ্বাসে অনশন ভাঙলেও শিক্ষার্থীরা নতুন পথে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। অনশন করা অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী জাহিদুল ইসলাম অপূর্ব বলেন, ‘অনশন থেকে সরে এলেও আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাব। উপাচার্যের পদত্যাগ না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে। দ্রুতই নিজেরা বসে আন্দোলনের ধরন ও কর্মসূচি ঠিক করব।’