গাফফার চৌধুরীর মৃত্যুতে যা বললেন পরীমণি

ভাষা আন্দোলন নিয়ে কালজয়ী গান ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি’র রচয়িতা বিশিষ্ট সাংবাদিক, গীতিকার, কলামিস্ট ও সাহিত্যিক আবদুল গাফফার চৌধুরী মারা গেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার (১৯ মে) যুক্তরাজ্যের লন্ডনে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। তার মৃত্যুতে ইতোমধ্যেই শোকের ছায়া নেমে এসেছে সংস্কৃতি অঙ্গনে।

‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি’ কালজয়ী এ গানের স্রষ্টার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন অনেকেই। ঠিক তেমনি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শোক প্রকাশ করেছেন আলোচিত অভিনেত্রী পরীমণি।

কারণ গত বছর পরীমনিকে গ্রেফতারের পর তার মুক্তির দাবিতে সোচ্চার ছিলেন গাফফার চৌধুরী। তাকে নিয়ে কবিতাও লিখেছিলেন তিনি। তাকে নিয়ে লেখা ‘পরীমনি, তুমি কেঁদো না’ শিরোনামে কবিতাটি পরীমণি তার ফেসবুকে পোস্ট করে এ চিত্রনায়িকা লিখেছেন, ‘আমি পেয়েছিলাম ঐ দুর্লভরে। মিলিবে কী আর…!’

মাদক মামলায় পরীমণিকে গ্রেফতারের পর তার মুক্তির দাবিতে সরব ছিলেন তিনি। লন্ডন থেকে মোবাইলে ফোনে বিভিন্ন সমাবেশে বক্তব্য দিয়েছেন তিনি। লিখেছেন কলামও। অক্টোবরের দিকে একটি জাতীয় দৈনিকে পরীমণিকে নিয়ে কবিতাটি লিখেছিলেন গাফফার চৌধুরী; যা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তুমুল আলোচিত হয়েছিল।

উল্লেথ্য, কালজয়ী গানের রচয়িতা আবদুল গাফফার চৌধুরী বরিশাল জেলার মেহেন্দিগঞ্জের উলানিয়া গ্রামের চৌধুরী বাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা হাজি ওয়াহিদ রেজা চৌধুরী ও মা মোসাম্মৎ জহুরা খাতুন। তিন ভাই, পাঁচ বোনের মধ্যে বড় ভাই হোসেন রেজা চৌধুরী ও ছোট ভাই আলী রেজা চৌধুরী। বোনেরা হলেন- মানিক বিবি, লাইলী খাতুন, সালেহা খাতুন, ফজিলা বেগম ও মাসুমা বেগম।